জৈব সার ও রাসায়নিক সারের পার্থক্য

দেশের জনগণের কল্যাণ ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন সাধনের জন্য অধিক পরিমাণে ফসল উৎপন্ন করা খুবই জরুরী।  ফসল উৎপাদনের প্রাথমিক উৎস হল মাটি। তবে কখনো কখনো সব মাটিতে পর্যাপ্ত মিনারেলস থাকে না। অথবা বারবার ফসল উৎপাদনের ফলে…

দেশের জনগণের কল্যাণ ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন সাধনের জন্য অধিক পরিমাণে ফসল উৎপন্ন করা খুবই জরুরী। 

ফসল উৎপাদনের প্রাথমিক উৎস হল মাটি। তবে কখনো কখনো সব মাটিতে পর্যাপ্ত মিনারেলস থাকে না। অথবা বারবার ফসল উৎপাদনের ফলে মাটির উর্বরতা শক্তি হ্রাস পায় । তখন কিছু বাহ্যিক উপাদান ব্যবহারের মাধ্যমে পুনরায় মাটিকে ফসল ফলানোর উপযোগী করে তোলা হয়। তার মধ্যে অন্যতম হলো সার। 

সার সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে। ১. জৈব সার ও ২. রাসায়নিক সার।

জৈব সার কি

জৈব সার হলো এক ধরনের প্রাকৃতিক সার যা গরু ছাগল ভেড়া ইত্যাদি পশুর গোবর ও পচা আবর্জনা থেকে তৈরি হয়ে থাকে। এটি মাটির উর্বরতা বাড়ায় । তাছাড়া পানির ধারণ ক্ষমতা ও বায়ু চলাচল বৃদ্ধি করে।

রাসায়নিক সার কি

রাসায়নিক সার প্রধানত ফ্যাক্টরিতে কৃত্রিম পদ্ধতি রাসায়নিক যৌগ পদার্থের মাধ্যমে তৈরি করা হয়। তাই এটিকে কৃত্রিম বা অজৈব সারও বলা হয়। যেমন ইউরিয়া, অ্যামোনিয়াম সালফেট, সোডিয়াম নাইট্রেট। এই সারে ফসল উপযোগী অনেক পুষ্টি রয়েছে যার মধ্যে পটাশিয়াম নাইট্রোজেন ও ফসফরাস উল্লেখযোগ্য।

জৈব সার ও রাসায়নিক সারের পার্থক্য

জৈব সাররাসায়নিক সার
সংজ্ঞাজৈব সার হল এমন একটি পদার্থ যা পশুর মল ও মৃত আবর্জনা থেকে তৈরি হয়ে থাকে।রাসায়নিক সার বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থের মাধ্যমে তৈরি করা হয়।
প্রস্তুতএটি মাঠে তৈরি হয়ে থাকে।এটি বিশেষ যত্নে ফ্যাক্টরিতে তৈরি করা হয়।
পুষ্টিগুনজৈব সারে বিভিন্ন ধরণের সুষম পুষ্টিগুন থাকে।রাসায়নিক সারে একক পুষ্টিগুণ থাকে যেটি দীর্ঘমেয়াদী মাটি ও খাদ্যে পুষ্টির ভারসাম্যহীনতার কারণ হয়।
প্রয়োগের পরিমাণজৈব সারের পরিমাণের তুলনায় কম পুষ্টি উপাদান থাকে ফলে অধিক পরিমাণে প্রয়োগের প্রয়োজন হয়।রাসায়নিক সারে উচ্চ পুষ্টির থাকে তাই স্বল্প পরিমাণে প্রয়োগ করা হয়।
মেয়াদজৈব সারের প্রভাব দীর্ঘমেয়াদীরাসায়নিক সারের প্রভাব স্বল্পমেয়াদী
হিউমাসএটি মাটিকে হিউমাস প্রদান করে।এটি হিউমাস প্রদান করে না।
উপকারিতাজৈব সার পরিবেশবান্ধব হওয়ায় এটি মাটির কোনো ক্ষতি করে না বরং এতে প্রয়োজনীয় উদ্ভিদ পুষ্টি রয়েছে।রাসায়নিক সারে পর্যাপ্ত পরিমাণে উদ্ভিদ পুষ্টি থাকা সত্বেও রাসায়নিক সারের ব্যবহার মাটির জন্য ক্ষতিকর।
দূষণজৈব সার এর ফলে পরিবেশ দূষণ হয় না।রাসায়নিক সার ব্যবহারের ফলে পানি দূষণ হয়।
শোষণক্ষমতাএই সারের শোষণক্ষমতা ধীর গতির।এই সারের শোষণক্ষমতা দ্রুতগতির।
ব্যয়জৈব সার কৃত্রিম সার অপেক্ষা সাশ্রয়ী মূল্যের।রাসায়নিক সার কার্যকর হওয়া সত্বেও কৃষকের কাছে ব্যয়বহুল।
প্রভাবজৈব সারে প্রচুর পরিমাণে উপকারী অণুজীব রয়েছে, যা মাটিতে বায়োট্রান্সফর্মেশন প্রক্রিয়াটিকে উন্নত করে ও মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি করে।রাসায়নিক সার প্রয়োগের ফলে মাটির জীবাণুগুলির ক্রিয়াকলাপ রোধ হয়, যার ফলে মাটির স্ব-নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা হ্রাস পায়।
জৈব সার ও রাসায়নিক সারের পার্থক্য

কৃষি বিষয়ে আরো বিভিন্ন বিষয়ের পার্থক্য জানতে পড়ুন-

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।